300 Names Of Sri Lalita Trishati In Bengali

॥ Lalita Trishati Bengali Lyrics ॥

॥ ললিতা ত্রিশতি ॥
ললিতাত্রিশতীস্তোত্রম্
॥ শ্রীললিতাত্রিশতী পূর্বপীঠিকা ॥
অগস্ত্য উবাচ —
হয়গ্রীব দয়াসিন্ধো ভগবন্শিষ্যবত্সল ।
ত্বত্তঃ শ্রুতমশেষেণ শ্রোতব্যং য়দ্যদস্তিতত্ ॥ ১ ॥

রহস্য নাম সাহস্রমপি ত্বত্তঃ শ্রুতং ময় ।
ইতঃ পরং মে নাস্ত্যেব শ্রোতব্যমিতি নিশ্চয়ঃ ॥ ২ ॥

তথাপি মম চিত্তস্য পর্যাপ্তির্নৈব জায়তে।
কার্ত্স্ন্যার্থঃ প্রাপ্য ইত্যেব শোচয়িষ্যাম্যহং প্রভো ॥ ৩ ॥

কিমিদং কারণং ব্রূহি জ্ঞাতব্যাংশোঽস্তি বা পুনঃ ।
অস্তি চেন্মম তদ্ব্রূহি ব্রূহীত্যুক্তা প্রণম্য তম্ ॥ ৪ ॥

সূত উবাচ –
সমাললম্বে তত্পাদ য়ুগল়ং কলশোদ্ভবঃ ।
হয়াননো ভীতভীতঃ কিমিদং কিমিদং ত্বিতি ॥ ৫ ॥

মুঞ্চমুঞ্চেতি তং চোক্কা চিন্তাক্রান্তো বভূব সঃ ।
চিরং বিচার্য নিশ্চিন্বন্ বক্তব্যং ন ময়েত্যসৌ ॥ ৬ ॥

তষ্ণী স্থিতঃ স্মরন্নাজ্ঞাং ললিতাম্বাকৃতাং পুরা ।
প্রণম্য বিপ্রং সমুনিস্তত্পাদাবত্যজন্স্থিতঃ ॥ ৭ ॥

বর্ষত্রয়াবধি তথা গুরুশিষ্যৌ তথা স্থিতৌ।
তছৃংবন্তশ্চ পশ্যন্তঃ সর্বে লোকাঃ সুবিস্মিতাঃ ॥ ৮ ॥

তত্র শ্রীললিতাদেবী কামেশ্বরসমন্বিতা ।
প্রাদুর্ভূতা হয়গ্রীবং রহস্যেবমচোদয়ত্ ॥ ৯ ॥

শ্রীদেবী উবাচ –
আশ্বাননাবয়োঃ প্রীতিঃ শাস্ত্রবিশ্বাসিনি ত্বয়ি ।
রাজ্যং দেয়ং শিরো দেয়ং ন দেয়া ষোডশাক্ষরী ॥ ১০ ॥

স্বমাতৃ জারবত্ গোপ্যা বিদ্যৈষত্যাগমা জগুঃ ।
ততো ঽতিগোপনিয়া মে সর্বপূর্তিকরী স্তুতিঃ ॥ ১১ ॥

ময়া কামেশ্বরেণাপি কৃতা সাঙ্গোপিতা ভৃশম্ ।
মদাজ্ঞয়া বচোদেব্যশ্চত্ররর্নামসহস্রকম্ ॥ ১২ ॥

আবাভ্যাং কথিতা মুখ্যা সর্বপূর্তিকরী স্তুতিঃ ।
সর্বক্রিয়াণাং বৈকল্যপূর্তির্যজ্জপতো ভবেত্ ॥ ১৩ ॥

সর্ব পূর্তিকরং তস্মাদিদং নাম কৃতং ময়া ।
তদ্ব্রূহি ত্বমগস্ত্যায় পাত্রমেব ন সংশয়ঃ ॥ ১৪ ॥

পত্ন্যস্য লোপামুদ্রাখ্যা মামুপাস্তেঽতিভক্তিতঃ ।
অয়ঞ্চ নিতরাং ভক্তস্তস্মাদস্য বদস্ব তত্ ॥ ১৫ ॥

অমুঞ্চমানস্ত্বদ্বাদৌ বর্ষত্রয়মসৌ স্থিতঃ ।
এতজ্জ্ঞাতুমতো ভক্তয়া হিতমেব নিদর্শনম্ ॥ ১৬ ॥

চিত্তপর্যাপ্তিরেতস্য নান্যথা সম্ভবিষ্যতী ।
সর্বপূর্তিকরং তস্মাদনুজ্ঞাতো ময়া বদ ॥ ১৭ ॥

সূত উবাচ –
ইত্যুক্তান্তরধদাম্বা কামেশ্বরসমন্বিতা ।
অথোত্থাপ্য হয়গ্রীবঃ পাণিভ্যাং কুম্ভসম্ভবম্ ॥ ১৮ ॥

সংস্থাপ্য নিকটেবাচ উবাচ ভৃশ বিস্মিতঃ ।
হয়গ্রীব উবাচ —
কৃতার্থোঽসি কৃতার্থোঽসি কৃতার্থোঽসি ঘটোদ্ভব ॥ ১৯ ॥

ত্বত্সমো ললিতাভক্তো নাস্তি নাস্তি জগত্রয়ে ।
এনাগস্ত্য স্বয়ং দেবী তববক্তব্যমন্বশাত্ ॥ ২০ ॥

সচ্ছিষ্যেন ত্বয়া চাহং দৃষ্ট্বানস্মি তাং শিবাম্ ।
য়তন্তে দর্শনার্থায় ব্রহ্মবিষ্ণ্বীশপূর্বকাঃ ॥ ২১ ॥

অতঃ পরং তে বক্ষ্যামি সর্বপূর্তিকরং স্থবম্ ।
য়স্য স্মরণ মাত্রেণ পর্যাপ্তিস্তে ভবেদ্ধৃদি ॥ ২২ ॥

রহস্যনাম সাহ্স্রাদপি গুহ্যতমং মুনে ।
আবশ্যকং ততোঽপ্যেতল্ললিতাং সমুপাসিতুম্ ॥ ২৩ ॥

তদহং সম্প্রবক্ষ্যামি ললিতাম্বানুশাসনাত্ ।
শ্রীমত্পঞ্চদশাক্ষর্যাঃ কাদিবর্ণান্ক্রামন্ মুনে ॥ ২৪ ॥

পৃথগ্বিংশতি নামানি কথিতানি ঘটোদ্ভব ।
আহত্য নাম্নাং ত্রিশতী সর্বসম্পূর্তিকারণী ॥ ২৫ ॥

রহস্যাদিরহস্যৈষা গোপনীয়া প্রয়ত্নতঃ ।
তাং শৃণুষ্ব মহাভাগ সাবধানেন চেতসা ॥ ২৬ ॥

কেবলং নামবুদ্ধিস্তে ন কার্য তেষু কুম্ভজ।
মন্ত্রাত্মকং এতেষাং নাম্নাং নামাত্মতাপি চ ॥ ২৭ ॥

তস্মাদেকাগ্রমনসা শ্রোতব্যং চ ত্বয়া সদা ।
সূত উবাচ –
ইতি য়ুক্তা তং হয়গ্রীবঃ প্রোচে নামশতত্রয়ম্ ॥ ২৮ ॥

॥ ইতি শ্রীললিতাত্রিশতীস্তোত্রস্য পূর্বপীঠিকা সম্পূর্ণম্ ।

॥ ন্যাসম্ ॥
অস্য শ্রীললিতাত্রিশতী স্তোত্রনামাবলিঃ মহামন্ত্রস্য ভগবান্ হয়গ্রীব ঋষিঃ,
অনুষ্টুপ্ছন্দঃ, শ্রীললিতামহাত্রিপুরসুন্দরী দেবতা,
ঐং বীজম্, সৌঃ শক্তিঃ, ক্লোং কীলকম্,
মম চতুর্বিধফলপুরুষার্থে জপে (বা) পারায়ণে বিনিয়োগঃ ॥

ঐং অঙ্গুষ্ঠাভ্যাং নমঃ ।
ক্লীং তর্জনীভ্যাং নমঃ ।
সৌঃ মধ্যমাভ্যাং নমঃ ।
ঐং অনামিকাভ্যাং নমঃ ।
ক্লোং কনিষ্ঠিকাভ্যাং নমঃ ।
সৌঃ করতলকরপৃষ্ঠাভ্যাং নমঃ ॥

ঐং হৃদয়ায় নমঃ ।
ক্লোং শিরসে স্বাহা ।
সৌঃ শিখায়ৈ বষট্ ।
ঐং কবচায় হুং ।
ক্লোং নেত্রত্রয়ায় বৌষট্ ।
সৌঃ অস্ত্রায় ফট্ ।
ভূর্ভুবস্সুবরোমিতি দিগ্বন্ধঃ ॥

॥ ধ্যানম্ ॥
অতিমধুরচাপহস্তামপরিমিতামোদসৌভাগ্যাম্ ।
অরুণামতিশয়করুণামভিনবকুলসুন্দরীং বন্দে ॥

॥ লং ইত্যাদি পঞ্চপূজা ॥
লং পৃথিব্যাত্মিকায়ৈ শ্রীললিতাম্বিকায়ৈ গন্ধং সমর্পয়ামি ।
হং আকাশাত্মিকায়ৈ শ্রীললিতাম্বিকায়ৈ পুষ্পৈঃ পূজয়ামি ।
য়ং বায়্বাত্মিকায়ৈ শ্রীললিতাম্বিকায়ৈ কুঙ্কুমং আবাহয়ামি ।
রং বহ্যাত্মিকায়ৈ শ্রীললিতাম্বিকায়ৈ দীপং দর্শয়ামি ।
বং অমৃতাত্মিকায়ৈ শ্রীললিতাম্বিকায়ৈ অমৃতং মহানৈবেদ্যং নিবেদয়ামি ।
সং সর্বাত্মিকায়ৈ শ্রীললিতাম্বিকায়ৈ সর্বোপচারপূজাং সমর্পয়ামি ॥

॥ অথ শ্রীললিতাত্রিশতী স্তোত্রম্ ॥
ককাররূপা কল্যাণী কল্যাণগুণশালিনী ।
কল্যাণশৈলনিলয়া কমনীয়া কলাবতী ॥ ১ ॥

কমলাক্ষী কল্মষঘ্নী করুণামৃতসাগরা ।
কদম্বকাননাবাসা কদম্বকুসুমপ্রিয়া ॥ ২ ॥

কন্দর্পবিদ্যা কন্দর্পজনকাপাঙ্গবীক্ষণা ।
কর্পূরবীটীসৌরভ্যকল্লোলিতককুপ্তটা ॥ ৩ ॥

কলিদোষহরা কঞ্জলোচনা কম্রবিগ্রহা ।
কর্মাদিসাক্ষিণী কারয়িত্রী কর্মফলপ্রদা ॥ ৪ ॥

একাররূপা চৈকাক্ষর্যেকানেকাক্ষরাকৃতিঃ ।
এতত্তদিত্যনির্দেশ্যা চৈকানন্দচিদাকৃতিঃ ॥ ৫ ॥

এবমিত্যাগমাবোধ্যা চৈকভক্তিমদর্চিতা ।
একাগ্রচিত্তনির্ধ্যাতা চৈষণা রহিতাদ্দৃতা ॥ ৬ ॥

এলাসুগন্ধিচিকুরা চৈনঃ কূটবিনাশিনী ।
একভোগা চৈকরসা চৈকৈশ্বর্যপ্রদায়িনী ॥ ৭ ॥

একাতপত্রসাম্রাজ্যপ্রদা চৈকান্তপূজিতা ।
এধমানপ্রভা চৈজদনেকজগদীশ্বরী ॥ ৮ ॥

একবীরাদিসংসেব্যা চৈকপ্রাভবশালিনী ।
ঈকাররূপা চেশিত্রী চেপ্সিতার্থপ্রদায়িনী ॥ ৯ ॥

ঈদ্দৃগিত্যবিনির্দেশ্যা চেশ্বরত্ববিধায়িনী ।
ঈশানাদিব্রহ্মময়ী চেশিত্বাদ্যষ্টসিদ্ধিদা ॥ ১০ ॥

ঈক্ষিত্রীক্ষণসৃষ্টাণ্ডকোটিরীশ্বরবল্লভা ।
ঈডিতা চেশ্বরার্ধাঙ্গশরীরেশাধিদেবতা ॥ ১১ ॥

ঈশ্বরপ্রেরণকরী চেশতাণ্ডবসাক্ষিণী ।
ঈশ্বরোত্সঙ্গনিলয়া চেতিবাধাবিনাশিনী ॥ ১২ ॥

ঈহাবিরাহিতা চেশশক্তিরীষত্স্মিতাননা ।
লকাররূপা ললিতা লক্ষ্মীবাণীনিষেবিতা ॥ ১৩ ॥

See Also  300 Names Of Mahashastrri Trishatanamavalih In English

লাকিনী ললনারূপা লসদ্দাডিমপাটলা ।
ললন্তিকালসত্ফালা ললাটনয়নার্চিতা ॥ ১৪ ॥

লক্ষণোজ্জ্বলদিব্যাঙ্গী লক্ষকোট্যণ্ডনায়িকা ।
লক্ষ্যার্থা লক্ষণাগম্যা লব্ধকামা লতাতনুঃ ॥ ১৫ ॥

ললামরাজদলিকা লম্বিমুক্তালতাঞ্চিতা ।
লম্বোদরপ্রসূর্লভ্যা লজ্জাঢ্যা লয়বর্জিতা ॥ ১৬ ॥

হ্রীংকাররূপা হ্রীংকারনিলয়া হ্রীংপদপ্রিয়া ।
হ্রীংকারবীজা হ্রীংকারমন্ত্রা হ্রীংকারলক্ষণা ॥ ১৭ ॥

হ্রীংকারজপসুপ্রীতা হ্রীংমতী হ্রীংবিভূষণা ।
হ্রীংশীলা হ্রীংপদারাধ্যা হ্রীংগর্ভা হ্রীংপদাভিধা ॥ ১৮ ॥

হ্রীংকারবাচ্যা হ্রীংকারপূজ্যা হ্রীংকারপীঠিকা ।
হ্রীংকারবেদ্যা হ্রীংকারচিন্ত্যা হ্রীং হ্রীংশরীরিণী ॥ ১৯ ॥

হকাররূপা হলধৃত্পূজিতা হরিণেক্ষণা ।
হরপ্রিয়া হরারাধ্যা হরিব্রহ্মেন্দ্রবন্দিতা ॥ ২০ ॥

হয়ারূঢা সেবিতাংঘ্রির্হয়মেধসমর্চিতা ।
হর্যক্ষবাহনা হংসবাহনা হতদানবা ॥ ২১ ॥

হত্যাদিপাপশমনী হরিদশ্বাদিসেবিতা ।
হস্তিকুম্ভোত্তুঙ্ককুচা হস্তিকৃত্তিপ্রিয়াঙ্গনা ॥ ২২ ॥

হরিদ্রাকুঙ্কুমা দিগ্ধা হর্যশ্বাদ্যমরার্চিতা ।
হরিকেশসখী হাদিবিদ্যা হালামদোল্লসা ॥ ২৩ ॥

সকাররূপা সর্বজ্ঞা সর্বেশী সর্বমঙ্গলা ।
সর্বকর্ত্রী সর্বভর্ত্রী সর্বহন্ত্রী সনাতনা ॥ ২৪ ॥

সর্বানবদ্যা সর্বাঙ্গসুন্দরী সর্বসাক্ষিণী ।
সর্বাত্মিকা সর্বসৌখ্যদাত্রী সর্ববিমোহিনী ॥ ২৫ ॥

সর্বাধারা সর্বগতা সর্বাবগুণবর্জিতা ।
সর্বারুণা সর্বমাতা সর্বভূষণভূষিতা ॥ ২৬ ॥

ককারার্থা কালহন্ত্রী কামেশী কামিতার্থদা ।
কামসঞ্জীবিনী কল্যা কঠিনস্তনমণ্ডলা ॥ ২৭ ॥

করভোরুঃ কলানাথমুখী কচজিতাম্ভুদা ।
কটাক্ষস্যন্দিকরুণা কপালিপ্রাণনায়িকা ॥ ২৮ ॥

কারুণ্যবিগ্রহা কান্তা কান্তিধূতজপাবলিঃ ।
কলালাপা কম্বুকণ্ঠী করনির্জিতপল্লবা ॥ ২৯ ॥

কল্পবল্লী সমভুজা কস্তূরী তিলকাঞ্চিতা ।
হকারার্থা হংসগতির্হাটকাভরণোজ্জ্বলা ॥ ৩০ ॥

হারহারিকুচাভোগা হাকিনী হল্যবর্জিতা ।
হরিত্পতিসমারাধ্যা হঠাত্কারহতাসুরা ॥ ৩১ ॥

হর্ষপ্রদা হবির্ভোক্ত্রী হার্দসন্তমসাপহা ।
হল্লীসলাস্যসন্তুষ্টা হংসমন্ত্রার্থরূপিণী ॥ ৩২ ॥

হানোপাদাননির্মুক্তা হর্ষিণী হরিসোদরী ।
হাহাহূহূমুখস্তুত্যা হানিবৃদ্ধিবিবর্জিতা ॥ ৩৩ ॥

হয়্যঙ্গবীনহৃদয়া হরিকোপারুণাংশুকা ।
লকারাখ্যা লতাপূজ্যা লয়স্থিত্যুদ্ভবেশ্বরী ॥ ৩৪ ॥

লাস্যদর্শনসন্তুষ্টা লাভালাভবিবর্জিতা ।
লঙ্ঘ্যেতরাজ্ঞা লাবণ্যশালিনী লঘুসিদ্ধিদা ॥ ৩৫ ॥

লাক্ষারসসবর্ণাভা লক্ষ্মণাগ্রজপূজিতা ।
লভ্যতরা লব্ধভক্তিসুলভা লাঙ্গলায়ুধা ॥ ৩৬ ॥

লগ্নচামরহস্ত শ্রীশারদা পরিবীজিতা ।
লজ্জাপদসমারাধ্যা লম্পটা লকুলেশ্বরী ॥ ৩৭ ॥

লব্ধমানা লব্ধরসা লব্ধসম্পত্সমুন্নতিঃ ।
হ্রীংকারিণী চ হ্রীংকারী হ্রীংমধ্যা হ্রীংশিখামণিঃ ॥ ৩৮ ॥

হ্রীংকারকুণ্ডাগ্নিশিখা হ্রীংকারশশিচন্দ্রিকা ।
হ্রীংকারভাস্কররুচির্হ্রীংকারাংভোদচঞ্চলা ॥ ৩৯ ॥

হ্রীংকারকন্দাঙ্কুরিকা হ্রীংকারৈকপরায়ণাম্ ।
হ্রীংকারদীর্ঘিকাহংসী হ্রীংকারোদ্যানকেকিনী ॥ ৪০ ॥

হ্রীংকারারণ্যহরিণী হ্রীংকারাবালবল্লরী ।
হ্রীংকারপঞ্জরশুকী হ্রীংকারাঙ্গণদীপিকা ॥ ৪১ ॥

হ্রীংকারকন্দরা সিংহী হ্রীংকারাম্ভোজভৃঙ্গিকা ।
হ্রীংকারসুমনো মাধ্বী হ্রীংকারতরুমঞ্জরী ॥ ৪২ ॥

সকারাখ্যা সমরসা সকলাগমসংস্তুতা ।
সর্ববেদান্ত তাত্পর্যভূমিঃ সদসদাশ্রয়া ॥ ৪৩ ॥

সকলা সচ্চিদানন্দা সাধ্যা সদ্গতিদায়িনী ।
সনকাদিমুনিধ্যেয়া সদাশিবকুটুম্বিনী ॥ ৪৪ ॥

সকালাধিষ্ঠানরূপা সত্যরূপা সমাকৃতিঃ ।
সর্বপ্রপঞ্চনির্মাত্রী সমনাধিকবর্জিতা ॥ ৪৫ ॥

সর্বোত্তুঙ্গা সঙ্গহীনা সগুণা সকলেষ্টদা । var সকলেশ্বরী
ককারিণী কাব্যলোলা কামেশ্বরমনোহরা ॥ ৪৬ ॥

কামেশ্বরপ্রণানাডী কামেশোত্সঙ্গবাসিনী ।
কামেশ্বরালিঙ্গিতাঙ্গী কামেশ্বরসুখপ্রদা ॥ ৪৭ ॥

কামেশ্বরপ্রণয়িনী কামেশ্বরবিলাসিনী ।
কামেশ্বরতপঃ সিদ্ধিঃ কামেশ্বরমনঃপ্রিয়া ॥ ৪৮ ॥

কামেশ্বরপ্রাণনাথা কামেশ্বরবিমোহিনী ।
কামেশ্বরব্রহ্মবিদ্যা কামেশ্বরগৃহেশ্বরী ॥ ৪৯ ॥

কামেশ্বরাহ্লাদকরী কামেশ্বরমহেশ্বরী ।
কামেশ্বরী কামকোটিনিলয়া কাঙ্ক্ষিতার্থদা ॥ ৫০ ॥

লকারিণী লব্ধরূপা লব্ধধীর্লব্ধবাঞ্চিতা ।
লব্ধপাপমনোদূরা লব্ধাহঙ্কারদুর্গমা ॥ ৫১ ॥

লব্ধশক্তির্লব্ধদেহা লব্ধৈশ্বর্যসমুন্নতিঃ ।
লব্ধবৃদ্ধির্লব্ধলীলা লব্ধয়ৌবনশালিনী ॥ ৫২ ॥ var লব্ধবুধিঃ

লব্ধাতিশয়সর্বাঙ্গসৌন্দর্যা লব্ধবিভ্রমা ।
লব্ধরাগা লব্ধপতির্লব্ধনানাগমস্থিতিঃ ॥ ৫৩ ॥ var লব্ধগতি

লব্ধভোগা লব্ধসুখা লব্ধহর্ষাভিপূরিতা । পূজিতা
হ্রীংকারমূর্তির্হ্রীণ্কারসৌধশৃঙ্গকপোতিকা ॥ ৫৪ ॥

হ্রীংকারদুগ্ধাব্ধিসুধা হ্রীংকারকমলেন্দিরা ।
হ্রীংকারমণিদীপার্চির্হ্রীংকারতরুশারিকা ॥ ৫৫ ॥

হ্রীংকারপেটকমণির্হ্রীংকারদর্শবিম্বিতা ।
হ্রীংকারকোশাসিলতা হ্রীংকারাস্থাননর্তকী ॥ ৫৬ ॥

হ্রীংকারশুক্তিকা মুক্তামণির্হ্রীংকারবোধিতা ।
হ্রীংকারময়সৌবর্ণস্তম্ভবিদ্রুমপুত্রিকা ॥ ৫৭ ॥

হ্রীংকারবেদোপনিষদ্ হ্রীংকারাধ্বরদক্ষিণা ।
হ্রীংকারনন্দনারামনবকল্পক বল্লরী ॥ ৫৮ ॥

হ্রীংকারহিমবদ্গঙ্গা হ্রীংকারার্ণবকৌস্তুভা ।
হ্রীংকারমন্ত্রসর্বস্বা হ্রীংকারপরসৌখ্যদা ॥ ৫৯ ॥

॥ ইতি শ্রীললিতাত্রিশতীস্তোত্রং সম্পূর্ণম্ ॥

॥ শ্রীললিতা ত্রিশতী উত্তরপীঠিকা ॥

হয়গ্রীব উবাচ –

ইত্যেবং তে ময়াখ্যাতং দেব্যা নামশতত্রয়ম্ ।
রহস্যাতিরহস্যত্বাদ্গোপনীয়ং ত্বয়া মুনে ॥ ১ ॥

শিববর্ণানি নামানি শ্রীদেব্যা কথিতানি হি ।
শক্তয়ক্ষরাণি নামানি কামেশকথিতানি চ ॥ ২ ॥

উভয়াক্ষরনামানি হ্যুভাভ্যাং কথিতানি বৈ ।
তদন্যৈর্গ্রথিতং স্তোত্রমেতস্য সদৃশং কিমু ॥ ৩ ॥

নানেন সদৃশং স্তোত্রং শ্রীদেবী প্রীতিদায়কম্ ।
লোকত্রয়েঽপি কল্যাণং সম্ভবেন্নাত্র সংশয়ঃ ॥ ৪ ॥

সূত উবাচ –

ইতি হয়মুখগীতং স্তোত্ররাজং নিশম্য
প্রগলিত কলুষোঽভৃচ্চিত্তপর্যাপ্তিমেত্য ।

নিজগুরুমথ নত্বা কুম্ভজন্মা তদুক্তং
পুনরধিকরহস্যং জ্ঞাতুমেবং জগাদ ॥ ৫ ॥

অগস্ত্য উবাচ —
অশ্বানন মহাভাগ রহস্যমপি মে বদ ।
শিববর্ণানি কান্যত্র শক্তিবর্ণানি কানি হি ॥ ৬ ॥

উভয়োরপি বর্ণানি কানি বা বদ দেশিক।
ইতি পৃষ্টঃ কুম্ভজেন হয়গ্রীবোঽবদত্যুনঃ ॥ ৭ ॥

হয়গ্রীব উবাচ –

তব গোপ্যং কিমস্তীহ সাক্ষাদম্বানুশাসনাত্ ।
ইদং ত্বতিরহস্যং তে বক্ষ্যামি কুম্ভজ ॥ ৮ ॥

এতদ্বিজ্ঞনমাত্রেণ শ্রিবিদ্যা সিদ্ধিদা ভবেত্ ।
কত্রয়ং হদ্বয়ং চৈব শৈবো ভাগঃ প্রকীর্তিতঃ ॥ ৯ ॥

শক্তয়ক্ষরাণি শেষাণিহ্রীঙ্কার উভয়াত্মকঃ ।
এবং বিভাগমজ্ঞাত্বা য়ে বিদ্যাজপশালিনঃ ॥ ১০ ॥

ন তেশাং সিদ্ধিদা বিদ্যা কল্পকোটিশতৈরপি ।
চতুর্ভিঃ শিবচক্রৈশ্চ শক্তিচক্রৈশ্চ পঞ্চভিঃ ॥ ১১ ॥

নব চক্রৈশ্ল সংসিদ্ধং শ্রীচক্রং শিবয়োর্বপুঃ ।
ত্রিকোণমষ্টকোনং চ দশকোণদ্বয়ং তথা ॥ ১২ ॥

চতুর্দশারং চৈতানি শক্তিচক্রাণি পঞ্চ চ ।
বিন্দুশ্চাষ্টদলং পদ্মং পদ্মং ষোডশপত্রকম্ ॥ ১৩ ॥

চতুরশ্রং চ চত্বারি শিবচক্রাণ্যনুক্রমাত্ ।
ত্রিকোণে বৈন্দবং শ্লিষ্টং অষ্টারেষ্টদলাম্বুজম্ ॥ ১৪ ॥

See Also  300 Names Of Prachanda Chandi Trishati In Kannada

দশারয়োঃ ষোডশারং ভূগৃহং ভুবনাশ্রকে ।
শৈবানামপি শাক্তানাং চক্রাণাং চ পরস্পরং ॥ ১৫ ॥

অবিনাভাবসম্বন্ধং য়ো জানাতি স চক্রবিত্ ।
ত্রিকোণরূপিণি শক্তির্বিন্দুরূপপরঃ শিবঃ ॥ ১৬ ॥

অবিনাভাবসম্বন্ধং তস্মাদ্বিন্দুত্রিকোণয়োঃ ।
এবং বিভাগমজ্ঞাত্বা শ্রীচক্রং য়ঃ সমর্চয়েত্ ॥ ১৭ ॥

ন তত্ফলমবাপ্নোতি ললিতাম্বা ন তুষ্যতি ।
য়ে চ জানন্তি লোকেঽস্মিন্শ্রীবিদ্যাচক্রবেদিনঃ ॥ ১৮ ॥

সামন্যবেদিনঃ সর্বে বিশেষজ্ঞোঽতিদুর্লভঃ ।
স্বয়ং বিদ্যা বিশেষজ্ঞো বিশেষজ্ঞ সমর্চয়েত্ ॥ ১৯ ॥

তস্মৈঃ দেয়ং ততো গ্রাহ্যমশক্তস্তব্যদাপয়েত্।
অন্ধম্তমঃ প্রবিশন্তি য়ে ঽবিদ্যাং সমুপাসতে ॥ ২০ ॥

ইতি শ্রুতিরপাহৈতানবিদ্যোপাসকান্পুনঃ ।
বিদ্যান্যোপাসকানেব নিন্দত্যারুণিকী শ্রুতিঃ ॥ ২১ ॥

অশ্রুতা সশ্রুতাসশ্ব য়জ্চানোং য়েঽপ্যয়ঞ্জনঃ ।
সবর্যন্তো নাপেক্ষন্তে ইন্দ্রমগ্নিশ্চ য়ে বিদুঃ ॥ ২২ ॥

সিকতা ইব সংয়ন্তি রশ্মিভিঃ সমুদীরিতাঃ ।
অস্মাল্লোকাদমুষ্মাচ্চেত্যাহ চারণ্যক শ্রুতিঃ ॥ ২৩ ॥

য়স্য নো পশ্চিমং জন্ম য়দি বা শঙ্করঃ স্বয়ম্।
তেনৈব লভ্যতে বিদ্যা শ্রীমত্পচ্চদশাক্ষরী ॥ ২৪ ॥

ইতি মন্ত্রেষু বহুধা বিদ্যায়া মহিমোচ্যতে ।
মোক্ষৈকহেতুবিদ্যা তু শ্রীবিদ্যা নাত্র সংশয়ঃ ॥ ২৫ ॥

ন শিল্পদি জ্ঞানয়ুক্তে বিদ্বচ্ছব্ধঃ প্রয়ুজ্যতে ।
মোক্ষৈকহেতুবিদ্যা সা শ্রীবিদ্যৈব ন সংশয়ঃ ॥ ২৬ ॥

তস্মাদ্বিদ্যাবিদেবাত্র বিদ্বান্বিদ্বানিতীর্যতে ।
স্বয়ং বিদ্যাবিদে দদ্যাত্খ্যাপয়েত্তদ্গুণান্সুধীঃ ॥ ২৭ ॥

স্বয়ংবিদ্যারহস্যজ্ঞো বিদ্যামাহাত্ম্যমবেদ্যপি
বিদ্যাবিদং নার্চয়েচ্চেত্কো বা তং পূজয়েজ্জনঃ ॥ ২৮ ॥

প্রসঙ্গাদিদমুক্তং তে প্রকৃতং শৃণু কুম্ভজ ।
য়ঃ কীর্তয়েত্সকৃত্ভক্তয়া দিব্যনামশতত্রয়ম্ ॥ ২৯ ॥

তস্য পুণ্যমহং বক্ষ্যে দ্বং কুম্ভসম্ভব ।
রহস্যনামসাহস্রপাঠে য়ত্ফলমীরিতম্ ॥ ৩০ ॥

তত্ফলং কোটিগুণিতমেকনামজপাদ্ভবেত্ ।
কামেশ্বরীকামেশাভ্যাং কৃতং নামশতত্রয়ম্ ॥ ৩১ ॥

নান্যেন তুলয়েদেতত্স্তোত্রেণান্য কৃতেন চ ।
শ্রিয়ঃ পরম্পরা য়স্য ভাবি বা চোত্তরোত্তরম্ ॥ ৩২ ॥

তেনৈব লভ্যতে চৈতত্পশ্চাচ্ছেয়ঃ পরীক্ষয়েত্ ।
অস্যা নাম্নাং ত্রিশত্যাস্তু মহিমা কেন বর্ণয়তে ॥ ৩৩ ॥

য়া স্বয়ং শিবয়োর্বক্তপদ্মাভ্যাং পরিনিঃসৃতা ।
নিত্যং ষোডশসঙ্খ্যাকান্বিপ্রানাদৌ তু ভোজয়েত্ ॥ ৩৪ ॥

অভ্যক্তাংসিতিলতৈলেন স্নাতানুষ্ণেন বারিণা ।
অভ্যর্চ গন্ধপুষ্পাদ্যৈঃ কামেশ্বর্যাদিনামভিঃ ॥ ৩৫ ॥

সূপাপূপৈঃ শর্করাদ্মৈঃ পায়সৈঃ ফলসংয়ুতৈঃ ।
বিদ্যাবিদো বিশেষেণ ভোজয়েত্পোডশ দ্বিজান্ ॥ ৩৬ ॥

এবং নিত্যার্চনং কুর্যাতাদৌ ব্রাহ্মণ ভোজনম্ ।
ত্রিশতীনামভিঃ পশ্চাদ্ব্রাহ্মণান্ক্রমশোঽর্চয়েত্ ॥ ৩৭ ॥

তৈলাভ্যঙ্গাতিকং দত্বা বিভবে সতি ভক্তিতঃ ।
শুক্লপ্রতিপদারভ্য পৌর্ণমাস্যবধি ক্রমাত্ ॥ ৩৮ ॥

দিবসে দিবসে বিপ্রা ভোজ্যা বিংশতীসঙ্খ্যয়া ।
দশভিঃ পঞ্চভির্বাপি ত্রীভিরেকনবা দিনৈঃ ॥ ৩৯ ॥

ত্রিংশত্পষ্টিঃ শতং বিপ্রাঃ সম্ভোজ্যস্তিশতং ক্রমাত্ ।
এবং য়ঃ কুরুতে ভক্তয়া জন্মমধ্যে সকৃন্নরঃ ॥ ৪০ ॥

তস্যৈব সফলং জন্ম মুক্তিস্তস্য করে স্থিরাঃ ।
রহস্যনাম সাহস্ত্র ভোজনেঽপ্যেব্মেবহি ॥ ৪১ ॥

আদৌ নিত্যবলিং কুর্যাত্পশ্চাদ্বাহ্মণভোজনম্ ।
রহস্যনামসাহস্রমহিমা য়ো ময়োদিতঃ ॥ ৪২ ॥

সশিকরাণুরত্রৈকনামপ্নো মহিমবারিধেঃ ।
বাগ্দেবীরচিতে নামসাহস্নে য়দ্যদীরিতম্ ॥ ৪৩ ॥

তত্ফলং কোটিগুণিতং নাম্নোঽপ্যেকস্য কীর্তনাত্ ।
এতন্যৈর্জপৈঃ স্তোত্রৈরর্চনৈর্যত্ফলং ভবেত্ ॥ ৪৪ ॥

তত্ফলং কোটিগুণিতং ভবেন্নামশতত্রয়াত্ ।
বাগ্দেবিরচিতাস্তোত্রে তাদৃশো মহিমা য়দি ॥ ৪৫ ॥

সাক্ষাত্কামেশকামেশী কৃতে ঽস্মিন্গৃহৃতামিতি ।
সকৃত্সন্কীর্তনাদেব নাম্নাম্নস্মিব্শতত্রয়ে ॥ ৪৬ ॥

ভবেচ্চিত্তস্য পর্যপ্তির্ন্যূনমন্যানপেক্ষিণী ।
ন জ্ঞাতব্যমিতোঽপ্যন্যত্র জপ্তব্যশ্চ কুম্ভজ ॥ ৪৭ ॥

য়দ্যত্সাধ্যতমং কার্য তত্তদর্থমিদঞ্জপেত্ ।
তত্তত্ফলমবাপ্নোতি পশ্চাত্কার্য পরীক্ষয়েত্ ॥ ৪৮ ॥

য়ে য়ে প্রয়োগাস্তন্ত্রেষু তৈস্তৈর্যত্সাধ্যতে ফলং ।
তত্সর্ব সিদ্ধয়তি ক্ষিপ্রং নামত্রিশতকীর্তনাত্ ॥ ৪৯ ॥

আয়ুষ্করং পুষ্টিকরং পুত্রদং বশ্যকারকম্ ।
বিদ্যাপ্রদং কীর্তিকরং সুখবিত্বপ্রদায়কম্ ॥ ৫০ ॥

সর্বসম্পত্প্রদং সর্বভোগদং সর্বসৌখ্যদম্ ।
সর্বাভিষ্টপ্রদং চৈব দেব্যা নামশতত্রয়ম্ ॥ ৫১ ॥

এতজ্জপপরো ভূয়ান্নান্যদিচ্ছেত্কদাচন ।
এতত্কীর্তনসন্তুষ্টা শ্রীদেবী ললিতাম্বিকা ॥ ৫২ ॥

ভক্তস্য য়দ্যদিষ্টং স্যাত্তত্তত্যূরয়তে ধ্রুবং ।
তস্মাত্কুভোদ্ভবমুনে কীর্তয় ত্বমিদম্ সদা ॥ ৫৩ ॥

নাপরং কিঞ্চিদপি তে বোদ্ধব্যং নাবশিষ্যতে ।
ইতি তে কথিতং স্তোত্র ললিতা প্রীতিদায়কম্ ॥ ৫৪ ॥

নাবিদ্যাবেদিনে ব্রূয়ান্নাভক্তায় কদাচন ।
ন শঠায় ন দুষ্টায় নাবিশ্বাসায় কহির্চিত্ ॥ ৫৬ ॥

য়ো ব্রূয়াত্রিশতীং নাম্নাং তস্যানর্থো মহান্ভবেত্ ।
ইত্যাজ্ঞা শাঙ্করী প্রোক্তা তস্মাদ্গোপ্যমিদং ত্বয়া ॥ ৫৭ ॥

ললিতা প্রেরিতেনৈব ময়োক্তম্ স্তোত্রমুত্তমম্ ।
রহস্যনামসাহস্রাদপি গোপ্যমিদং মুনে ॥ ৫৮ ॥

সূত উবাচ –
এবমুক্ত্বা হয়গ্রীবঃ কুম্ভজং তাপসোত্তমম্ ।
স্তোত্রেণানেন ললিতাং স্তুত্বা ত্রিপুরসুন্দরী ॥

আনন্দলহরীমগ্নরমানসঃ সমবর্তত ॥ ৫৯ ॥

॥ ইতি শ্রী ব্রহ্মাণ্ডপুরাণে উত্তরাখণ্ডে
শ্রী হয়গ্রীবাগস্ত্যসংবাদে
শ্রীললিতাত্রিশতী স্তোত্র কথনং সম্পূর্ণম্ ॥

– Chant Stotra in Other Languages –

300 Names of Sri Lalita Trishati in SanskritEnglish – Bengali – GujaratiKannadaMalayalamOdiaTeluguTamil

॥ 300 Names of Sree Lalita Introduction ॥

This introduction deals with the background of lalitatrishati stotram.

Among the 18 puranas, brahmanda-purana is well known for the extolling of Lalita. It explains in detail the appearance of the Goddess Lalita to save the world from the clutches of the demon bhandasura.

There are three important sub-texts in this purana. The first of these texts is Lalitopakhyana, consisting of 45 chapters and is found in the last chapter of the purana. The last five chapters are especially well known. They extol the the Divine
mother, explain the significance of the mantra of the goddess (shodashakshari-vidya), the various mudras and postures to be practiced, meditations, initiations etc., and the mystical placement of the deities involved in Chakra. The next text
is the celebrated Lalita sahasranama, which consists of 320 verses in three chapters. The third text is the lalita trishati in which 300 names of the goddess is featured.There is a well known commentary on this work attributed to Adi Shankaracharya.

See Also  300 Names Of Prachanda Chandi Trishati In Malayalam

Lalita trishati and lalita sahasranama are dialogues between the sage Agastya and the god Hayagriva (Pronounced as hayagriva). Hayagriva is the incarnation of Vishnu who assumed the form of a horse to kill a demon by the same name. Agastya was a sage of great renown, who is immortalized as a star in the celestial heavens(one of the seven Rishi-s, saptarshi or Ursa Major). He is the patron saint of Tamilnadu being a founder ofa system of medicine called Siddha, and also having drunk the whole ocean in his kamandalum. According to yaska’s Nirukta, Agastya is the half-brother of the great sage, Vasishtha.

The story of the meeting of Agastya and Hayagriva is given in the lalitopakhyana and is quite interesting. Agastya was visiting several places of pilgrimage and was sad to see many people steeped in ignorance and involved in only sensual pleasures. He came to kannchi and worshiped kamakshi and sought a solution for the masses. Pleased with the devotion and his caring for the society, Lord Vishnu appeared before Agastya and provided the sage Agastya with the solution of `curing’ the worldly folk from ignorance. He explained that He is the primordial principle, and the source and the end of everything. Though He is above forms and gunas, He involves himself in them. He goes on to explain that a person should recognize that He is the pradhhana (primordial) transformed into the universe, and that He is also the purusha (conscious spirit) who is transcendental and beyond all gunas and forms. However to recognize this, one has to perform severe penance, self-discipline etc. If (since) this is difficult, Lord Vishnu advises that the worship of the goddess will achieve the purpose of life, given as liberation from bondage, very easily. He points out that even other Gods like Shiva and Brahma have worshiped the goddess Tripura. Vishnu concludes his discourse saying that this was revealed to Agastya so that he (Agastya) can spread the message to gods, sages, and humans. Vishnu requests Agastya to approach his incarnation, Hayagriva and disappears from Agastya’s sight. Agastya approaches Hayagriva with devotion and reverence. Hayagriva reveals to Agastya that
the great Goddess, lalita, is without beginning or end and is the foundation of the entire universe. The great goddess abides in everyone and can be realized only in meditation. The worship of goddess is done with the lalita sahasranama (1000 names) and Hayagriva teaches him this great sahasranama.

After this Agastya thanks Hayagriva and tells him that though he has heard about Sri Chakra upasana and the sahasranama he lacks the satisfaction of knowing all the secrets and catches hold of Hayagriva’s feet. Hayagriva is taken aback and keeps quiet.

At this time Goddess Lalita appears to Hayagriva and tells him that both Agastya and his wife Lopamudra are very dear to her, and that Agastya is worthy of receiving the secret Lalita trishati and then disappears.

Hayagriva lifts up Agastya and tells him that he is indeed a great man since Lalita herself had commanded him to impart the trishati to Agastya. He also tells him that he is fortunate to have Agastya as a disciple since he had the vision of Lalita
due to Agastya. He then gives him the following trishati.